Skip to main content

Posts

Showing posts from January 18, 2019

পারদ

পারদ একটি ভারী, রুপালী সাদা ধাতু। অন্যান্য ধাতুর তুলনায় এর তাপ পরিবাহিতা কম কিন্তু তড়িত্ִ পরিবাহিতা বেশি।[২] ব্লক মৌল হওয়া সত্ত্বেও এর গলনাংক ও স্ফুটনাংক অস্বাভাবিকভাবে কম। এর কারণ কোয়ান্টাম মেকানিক্স দ্বারা ঠিকভাবে ব্যাখ্যা করা যায়। পারদের একটি বিশেষ ধরনের ইলেকট্রন বিন্যাস বিদ্যমান। এর ইলেকট্রন বিন্যাসে ইলেকট্রনসমূহ ক্রমান্বয়ে 1s, 2s, 2p, 3s, 3p, 3d, 4s, 4p, 4d, 4f, 5s, 5p, 5d, 6s অরবিটালে প্রবেশ করে। এরকম গঠনের কারণে এর পরমাণু থেকে ইলেকট্রন অপসারণ অনেক কঠিন হয়ে পড়ে। ফলে পারদের ধর্মের সাথে মৌলিক গ্যাসসমূহের সামন্জস্য দেখা যায়, যেমন এদের পরমাণুসমূহের মধ্যে দুর্বল আকর্ষন বল থাকে তাই এরা কক্ষ তাপমাথাতেই তরল অবস্থায় থাকে।তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া

অন্ধ্রপ্রদেশ,ভারত

অন্ধ্রপ্রদেশ (/ˌɑːndrəprəˈdɛʃ/) হল ভারতের ২৯টি রাজ্যের অন্যতম। এই রাজ্য ভারতের দক্ষিণ-পূর্ব উপকূল অঞ্চলে অবস্থিত। এই রাজ্যের আয়তন ১,৬০,২০৫ কিমি২ (৬১,৮৫৫ মা২)। এটি আয়তনের হিসেবে ভারতের অষ্টম বৃহত্তম রাজ্য। ২০১১ সালের জনগণনা অনুসারে, অন্ধ্রপ্রদেশের জনসংখ্যা ৪৯,৩৮৬,৭৯৯। জনসংখ্যার হিসেবে এটি দেশের দশম বৃহত্তম রাজ্য। অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তরে তেলঙ্গানা ও ছত্তীসগঢ়, দক্ষিণে তামিলনাড়ু, উত্তর-পূর্বে

সমাজ

সমাজ মূলত এমন এক ব্যবস্থা বোঝায়, যেখানে একাধিক চরিত্র একত্রে কিছু নিয়ম-কানুন প্রতিষ্ঠা করে একত্রে বসবাসের উপযোগী পরিবেশ গড়ে তোলে। মানুষের ক্ষেত্রে একাধিক ব্যক্তি একত্র হয়ে লিখিত কিংবা অলিখিত নিয়ম-কানুন তৈরি করে; এরকম একত্র বসবাসের অবস্থাকে সমাজ বলে। মানুষ ছাড়াও ইতর প্রাণীর ক্ষেত্রে সমাজের অস্তিত্ব দেখা যায়, তবে সেখানে মানুষের মতো কাঠামোবদ্ধ সমাজের দৃষ্টান্ত নজরে আসে না।সমাজের দুটো গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো:ট্যাবু বা নিষিদ্ধ আচার, ওটোটেমসমাজের মধ্যে যেমন সদস্যদের মধ্যে থাকে পরস্পর সৌহার্দ্য, সহযোগিতা, মমত্ব ; তেমনি তৈরি হতে পারে ঘৃণা, লোভ, জিঘাংসা। তাই সমাজের মধ্যে শৃংখলা ধরে রাখার স্বার্থে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অলিখিতভাবে তৈরি হয় কিছু নিয়ম, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই যার লঙ্ঘন চরম অসম্মানজনক, এবং সমাজের দৃষ্টিতে শাস্তিযোগ্য। তবে নিঃসন্দেহে সুন্দর ও সুষ্ঠু সমাজ ব্যবস্থার জন্য সৌহার্দ্য, সহযোগিতা একান্ত দরকার।তথ্যসূত্রঃ উইকিপিডিয়া